ভোটে হেরে ধাক্কা দেই পরে গিয়ে কান কেটে গেছে বিজয়ী প্রার্থীর | Sylhet i News
মঙ্গলবার, ২৫ জানুয়ারী ২০২২, ০৮:১৯ পূর্বাহ্ন



আই নিউজ ডেস্ক ::

প্রকাশ ২০২২-০১-০৮ ১৬:২৭:৪১
ভোটে হেরে ধাক্কা দেই পরে গিয়ে কান কেটে গেছে বিজয়ী প্রার্থীর

ভোটে হেরে বিজয়ী প্রার্থীর কান ছিঁড়ে নিলেন পরাজিত প্রার্থী

ভোটে হেরে হামলা করে বিজয়ী প্রার্থীর কান ছিঁড়ে নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে পরাজিত প্রার্থীর বিরুদ্ধে।ঘটনাটি ঘটেছে মানিকগঞ্জের হরিরামপুরের ৬নং বয়ড়া ইউনিয়ন পরিষদের ৪,৫,৬নং ওয়ার্ডে।

ভুক্তভোগীর বিজয়ী প্রার্থীর নাম হাবেজা বেগম। কান ছিঁড়ে নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে প্রতিপক্ষ নার্গিস আক্তারের বিরুদ্ধে।

শুক্রবার (৭ জানুয়ারি) সকালে উপজেলার যাত্রাপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

হাবেজা বেগম বয়ড়া ইউনিয়নের ৪, ৫ ও ৬ নম্বর ওয়ার্ড থেকে সংরক্ষিত নারী সদস্য পদে নির্বাচন করে বিজয়ী হয়েছেন। 

স্থানীয়রা জানান, হেলিকপ্টার প্রতীক নিয়ে বিপুল ভোটে জয়ী হন হাবেজা বেগম। একই এলাকার কলম প্রতীকের প্রার্থী নার্গিস আক্তার তার কাছে পরাজিত হন। 

সকালে বিজয়ী প্রার্থী হাবেজা বেগম বাড়ির উঠানে দাঁড়িয়ে ছিলেন।এ সময় পরাজিত প্রার্থী নার্গিস আক্তার তার লোকজন নিয়ে দেশীয় অস্ত্রসহ হামলা করে। এতে হাবেজা বেগমের কান ছিঁড়ে যায়। পরে উদ্ধার করে তাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেওয়া হয়।

হাবেজা বেগমের স্বামী রতন প্রামাণিক বলেন, ‘আমার স্ত্রী বাড়ির উঠানে দাঁড়িয়ে ছিলেন। পেছন থেকে পরাজিত প্রার্থী নার্গিস আক্তার ও তার স্বামী রউফ মোল্লাসহ কয়েকজন দেশী অস্ত্র নিয়ে হামলা করে। হামলায় আমার স্ত্রীর কান ছিঁড়ে যায়।

অভিযুক্ত পরাজিত প্রার্থী নার্গিস আক্তার বলেন, জয়ী প্রার্থীর বাড়ির সামনে দিয়ে যাওয়ার সময় আমাকে গালিগালাজ করেন। আমার দিকে মারতে আসলে আমি ধাক্কা দেই। পরে গিয়ে কান কেটে গেছে।

হরিরামপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সৈয়দ মিজানুর ইসলাম বলেন, এ বিষয়ে অভিযোগ পেয়েছি। দোষীদের বিরুদ্ধে দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।



আই নিউজ/তাহা

ফেসবুক পেইজ