'মহানবী (সা.) এর আদর্শ বাস্তবায়নে আল ইসলাহ কর্মীরা প্রতিজ্ঞাবদ্ধ' | Sylhet i News
শনিবার, ২৫ জুন ২০২২, ০৭:১৫ পূর্বাহ্ন



আই নিউজ ডেস্ক ::

প্রকাশ ২০২২-০৬-২০ ০৭:২৩:৫২
'মহানবী (সা.) এর আদর্শ বাস্তবায়নে আল ইসলাহ কর্মীরা প্রতিজ্ঞাবদ্ধ'

বাংলাদেশ আনজুমানে আল ইসলাহ'র মুহাতারাম সভাপতি হযরত আল্লামা হুছামুদ্দীন চৌধুরী ফুলতলী বলেছেন, আনজুমানে আল ইসলাহর প্রতিটি কর্মী দ্বীনের এক একজন অতন্দ্র প্রহরী। তারা আল্লাহর দ্বীন প্রতিষ্ঠা ও মহানবী (সা.) এর আদর্শ বাস্তবায়নের মাধ্যমে সমাজের সার্বিক কল্যাণ সাধনে সর্বোচ্চ ত্যাগ করতে প্রস্তুত।

তিনি বলেন, বর্তমানে বহুমুখী সমস্যা ও ফিতনার এই সময়ে আনজুমানে আল ইসলাহ ইসলামের সঠিক আকীদা প্রচার ও প্রসারে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে যাচ্ছে।

তিনি আল ইসলাহ কর্মীদেরকে আল্লাহর প্রতি অবিচল আস্তা রেখে এ কাজে আরো সাহসী ভুমিকা পালনে এগিয়ে আসার আহবান জানান। 

রোববার বৃটেনের অন্যতম এক মনোরম শহর নর্থাম্পটনশায়ারের এক অভিজাত হোটেলে আনজুমানে আল ইসলাহ ইউকের ত্রিবার্ষিক কাউন্সিল ও সাধারণ সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি আরও বলেন, মহানবী (সা.) এর আজমত এবং হুরমত রক্ষা করা প্রতিটি মুসলমানের ঈমানী দায়িত্ব। কোন মুসলমান আল্লাহর প্রিয় হাবীবের নূন্যতম অপমান বরদাশত করতে পারে না। এজন্য আনজুমানে আল ইসলাহর কর্মীরা প্রিয়নবীর শান এবং মানকে সমুন্নত রাখা নিজের প্রাণ রক্ষার চেয়েও গুরুত্বপূর্ণ মনে করে। তিনি সম্প্রতি ভারত সরকারের জনৈক মুখপাত্রের দৃষ্টতাপূর্ণ বক্তব্যের তীব্র নিন্দা ও ক্ষোভ প্রকাশ করেন। 

তিনি বাংলাদেশ সরকারকে এ ব্যাপারে আনুষ্ঠানিক প্রতিবাদ জানিয়ে নিজেদেরকে ইসলাম, মুসলমান ও প্রিয় নবীর পক্ষের শক্তি হিসেবে প্রমাণ করার উদাত্ত আহবান জানান।

তিনি সম্প্রতি দেশে ভয়াবহ বন্যা কবলিত মানুষের প্রতি সহানুভূতি প্রকাশ করে আল্লাহ তায়ালার দরবারে দ্রুত বন্যাকবলিত মানুষের মুক্তি কামনা করেন। বন্যার্তদের সাহায্যে আল ইসলাহর কর্মী, সমাজের বিত্তবান জনসাধারণ ও বাংলাদেশ সরকারকে আরো উদারহস্তে সহযোগিতায় এগিয়ে আসার উদাত্ত আহবান জানান।


এসময় আনজুমানে আল ইসলাহ ইউকের বিদায়ী প্রেসিডেন্ট শায়খুল হাদীস আল্লামা হাফিজ আবদুল জলিল সাহেবের সভাপতিত্বে ও জয়েন্ট সেক্রেটারী মাওলানা এম এ কাদির আল হাসানের উপস্থাপনায় অনুষ্ঠিত সাধারণ সভায় রিপোর্ট উপস্থাপন করেন সংগঠনের সেক্রেটারী জেনারেল ও দারুল হাদীস লাতিফিয়া লন্ডনের প্রিন্সিপাল মাওলানা মোহাম্মদ হাসান চৌধুরী। একাউন্ট উপস্থাপন করেন সংগঠনের ট্রেজারার মোহাম্মদ আবদুস সালাম।

সংগঠনের আগামী দিনের কর্মসূচি বাস্তবায়নের দীপ্ত শপথ নিয়ে এই সম্মেলন সমাপ্ত হয়।

এর আগে দুপুর বারোটা থেকে শুরু হওয়া এই সম্মেলনে কর্মীরা মোট ছয়টি বিভাগে বিভক্ত হয়ে বিভিন্ন সেমিনারে অংশ গ্রহণ করেন। লিডারশিপ, ফাইনান্স, আইডিয়া শেয়ারিং, এডমিনিস্ট্রেশন, ইয়ূথ ফোরাম এবং উলামা সোসাইটি শীরোনামে অনুষ্ঠিত সেমিনারগুলো উপস্থাপন করেন মাওলানা এমএ কাদির আল হাসান, মাওলানা খায়রুল হুদা খান, আলহাজ খুরশিদুল হক, আলহাজ বদরুল ইসলাম, মাওলানা মারুফ আহমদ এবং মাওলানা ফরিদ আহমদ চৌধুরী। তাদেরকে সহযোগিতা করেন আলহাজ মিযান খান, আলহাজ আবদুস সালাম, মাওলানা আবদুল কাহহার, মাওলানা সালমান আহমদ চৌধুরী, হাফিজ আনহার আহমদ। এতে গ্রুপ লিডারের দায়িত্ব পালন করেন হাফিজ মাওলানা কয়েছুজ্জামান, মাওলানা আবদুল কুদ্দুছ, আফতাব আহমদ এবং শওকত সিদ্দীকী।

হাফিয মাওলানা আনহার আহমদ এর কিরাত পাঠ এবং কারী আবদুল মুহিত এর নাতে রাসূল (সা.) পরিবেশনের মাধ্যমে সূচিত সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন ইউকে আল ইসলাহর ভাইস প্রেসিডেন্ট শায়খুল হাদীস হযরত মাওলানা নজরুল ইসলাম, লাতিফিয়া উলামা সোসাইটি ইউকের প্রেসিডেন্ট হযরত মাওলানা শেহাব উদ্দীন, লাতিফিয়া কারী ইউকের জেনারেল সেক্রেটারি মাওলানা মুফতী আশরাফুর রহমান, দারুল হাদীস লাতিফিয়া নর্থওয়েস্টের প্রিন্সিপাল হযরত মাওলানা সালমান আহমদ চৌধুরী ফুলতলী।

এতে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন মাওলানা ফখরুল হাসান রুতবাহ, মাওলানা আবদুল মতিন, হাফিয মাওলানা ফারুক আহমদ, আলহাজ বশির উদ্দীন আহমদ, আলহাজ ইমদাদুর রহমান, কাউন্সিলর দিলাওয়ার আলী, কাউন্সিলর সাঈদ আহমদ প্রমুখ।

আইনিউজ/এসএম

ফেসবুক পেইজ