শুক্রবার, ০১ মার্চ ২০২৪, ১১:১৫ অপরাহ্ন



Repoter Image

মোঃ লুৎফুর রহমান

প্রকাশ ০৩/০৯/২০২২ ০৪:৩০:০০

বাংলাদেশের প্রতিটা জেলায় ও উপজেলায় অনেক ব্যবসায়ী, বাড়িওয়ালা, চাকুরীজীবি ও বৃত্তবান লোক আছে যাদের আয়ের ব্যাপারে সরকার অবগত নয়। এই শ্রেণির লোক নিজ থেকে সরকারকে রাজস্ব দেয় না।  আয়কর, ভ্যাট ও অন্যান্য কর তারা ফাকি দিয়ে যাচ্ছে বছরের পর বছর। সরকারি ভ্যাট/ইনকাম ট্যাক্স/অন্যান্য কর আদায়কারী কর্মকর্তারা নিজে দায়িত্ব নিয়ে সরকারি রাজস্ব বৃদ্ধি করার চেষ্টা করেননা। সামান্য পরিমাণ  রাজস্ব আদায় করে সেই সরকারি কর্মকর্তারা দায়সারার মত কাজ করেন। বেশির ভাগ কর্মকর্তারা অসৎ, ঘুষখোর ও দুর্নীতিবাজ এটির প্রমাণ মিলবে যদি তাদের ব্যক্তিগত ব্যাংক হিসাব বা তাদের স্ত্রী-সন্তানের ব্যাংক হিসাব বা তাদের অর্জিত সম্পদের হিসাব  তলব করা হয় তাহলে পাওয়া যাবে তাদের অবৈধ আয়ের উৎস। 


নাম প্রকাশ করতে অনিচ্ছুক একাধিক  ব্যক্তি বলেন, তারা একাদিক ব্যক্তির বিরুদ্ধে আয়কর অফিস, ভ্যাট অফিস, বন বিভাগ ও  অন্যান্য রাজস্ব আদায়কারী অফিসে অভিযোগ দিয়েও কোন প্রতিকার পাননি।  উনারা বলেন, আমরা রাজস্ব আদায়কারী কর্মকর্তাদের বলেছি অভিযুক্ত ব্যক্তিরা রাজস্ব/আয়কর/ভ্যাট দিচ্ছেন না।  তারা রাজস্ব ফাঁকি দিচ্ছে।  সেই অসাধু রাজস্ব আদায়কারী কর্মকর্তারা প্রায় দুই-তিন বছর ধরে ব্যবস্থা নিবেন/নিচ্ছি  বলে অভিযোগকারীদেরকে আশ্বাস দিচ্ছেন কিন্তু এখনও সঠিকভাবে ব্যবস্থা নেননি।  এই অসাধু কর্মকর্তারা অভিযুক্ত ব্যক্তিদের কাছ থেকে ঘুষ নিয়ে ঠিকঠাক ভাবে  রাজস্ব আদায় করছেন না।  এতে তারা সরকারি দায়িত্বে অবহেলা করছেন।  সরকার হারাচ্ছেন রাজস্ব।  


সরকারি রাজস্ব বৃদ্ধির জন্য সরকার যদি  "অভিযোগ সপ্তাহ " নামে একটা সপ্তাহ পালন করত তাহলে সরকারি রাজস্ব আশাতীত ভাবে বৃদ্ধি পেত। সরকার যদি বৎসরের একটা নির্দিষ্ট সপ্তাহে সাধারণ জনগণকে তথ্য প্রমানসহ কর ফাঁকিবাজ/আয়কর ফাঁকিবাজ/ অন্যান্য কর ফাঁকিবাজ/রাজস্ব ফাঁকিবাজদের বিরুদ্ধে অভিযোগ করার সুযোগ দেয়, অভিযোগ করার জন্য প্রজ্ঞাপন জারি করেন তাহলে জনগণ অভিযোগ করবেন এবং এই প্রাপ্ত অভিযোগ গুলো সর্বোচ্চ দুই মাসের ভিতরে প্রতিকারমূলক ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের নির্দেশ দেন ও ব্যবস্থা গ্রহণ করার জন্য বলেন তাহলে প্রতি জেলায় হাজার হাজার অভিযোগ পড়বে এবং অসৎ কর্মকর্তারা বাধ্য হয়ে অভিযুক্ত ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিবেন ও রাজস্ব আদায় করবেন। এভাবে প্রতিটি বছরের এক সপ্তাহকে "অভিযোগ সপ্তাহ " নামকরণ করা হলে সাধারণ জনগণ ভয় পেয়ে নিজ নিজ উদ্যোগে তাদের রাজস্ব পরিশোধ করবেন। অভিযোগ প্রমাণিত হলে অভিযুক্ত ব্যক্তির উপর বড় অংকের জরিমানা আরোপ করার ব্যবস্থা করতে হবে; এই জরিমানা আরোপ থেকেও বড় পরিমাণের একটা রাজস্ব আদায় হবে।  


সরকারি রাজস্ব কর্মকর্তারা অভিযুক্ত ব্যক্তির বিরুদ্ধে কি ব্যবস্থা গ্রহণ করেছেন তা অভিযোগকারীকে লিখিতভাবে জানাতে সেই কর্মকর্তা বাধ্য থাকবেন মর্মে সরকারি নির্দেশনা থাকতে হবে তাহলে দুর্নীতি অনেকাংশে কমে যাবে।  আর যদি রাজস্ব কর্মকর্তারা অভিযোগের কোন প্রতিকার না নেন বা কি ব্যবস্থা নিয়েছেন তা অভিযোগকারীকে না জানান তাহলে এই অভিযোগের কপি নিয়ে জেলা জজ কোর্টে ঐ রাজস্ব কর্মকর্তার বিরুদ্ধে মামলা করার ক্ষমতা অভিযোগকারীকে দিতে হবে তাহলে  দেখবেন সরকারি কর্মকর্তারা তাদের উপর অর্পিত দায়িত্ব সঠিকভাবে পালন করবেন এবং প্রচুর পরিমাণ রাজস্ব আদায় হবে।  দেশের অর্থনৈতিক সংকট কমবে এবং বৈদেশিক ঋণ গ্রহণের পরিমাণ কমে যাবে। রাজস্ব আয় বাড়লে উন্নয়নমূলক কার্যক্রম চালিয়ে যাওয়া যাবে এবং দেশ উন্নত দেশে পরিনত হবে। 


২০২২-২০২৩ অর্থ বছরের প্রস্তাবিত বাজেটের আকার ৬ লাখ ৭৮ হাজার ৬৪ কোটি টাকা। প্রস্তাবিত বাজেটে মোট রাজস্ব আয়ের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ৪ লাখ ৩৩ হাজার কোটি টাকা। এর মধ্যে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) সংগৃহীত কর থেকে পাওয়া যাবে ৩ লাখ ৭০ হাজার কোটি টাকা। এনবিআর–বহির্ভূত কর থেকে আসবে ১৮ হাজার কোটি টাকা আর কর ব্যতীত প্রাপ্তি ধরা হয়েছে ৪৫ হাজার কোটি টাকা।


এবারের বাজেটে মোট ঘাটতির পরিমাণ দাঁড়াবে ২ লাখ ৪৫ হাজার ৬৪ কোটি টাকা। ঘাটতির মধ্যে অনুদানসহ বৈদেশিক উৎস থেকে আসবে ৯৮ হাজার ৭২৯ কোটি টাকা আর অভ্যন্তরীণ উৎস থেকে আসবে ১ লাখ ৪৬ হাজার ৩৩৫ কোটি টাকা এবং ব্যাংক খাত থেকে নেওয়া হবে ১ লাখ ৬ হাজার ৩৩৪ কোটি টাকা।



আমার প্রস্তাবিত উপরিউক্ত পদ্ধতিটা  যদি বাংলাদেশ সরকার অনুসরণ করেন তাহলে আশা করা যায় সরকারের ঘটতি বাজেটের পরিমাণ কমে যাবে। রাজস্ব আয় ব্যাপক হারে বৃদ্ধি পেলে দেশের সরকারি সব ডিপার্টমেন্টে  চাকুরীর পোস্ট বৃদ্ধি করা যাবে, বিভিন্ন সরকারি ডিপার্টমেন্টে সরকারি জনবলের ঘাটতি কমে যাবে এবং এতে জনসেবা বৃদ্ধি পাবে। সর্বোপরি জনগণ খুশি থাকবে বলে আমি মনেকরি। 


লেখক. মো. লুৎফুর রহমান, সহকারী শিক্ষক, মিরপুর ফয়জুন্নেছা উচ্চ বিদ্যালয়, বাহুবল, হবিগঞ্জ।

ইমেইল rahmanlutfur4444@gmail 



সিলেট আই নিউজ / এপি

মাই ওয়েব বিট

আপনার ওয়েবসাইটের ভিজিটর মনিটরিং করার জন্য এটা ব্যবহার করতে পারেন, এটি গুগল এনালাইটিক এর মত কাজ করে।

ফেসবুক পেইজ