শুক্রবার, ০১ মার্চ ২০২৪, ১০:৪১ অপরাহ্ন



Repoter Image

গোয়াইনঘাট প্রতিনিধি :>>

প্রকাশ ১৯/০৩/২০২৩ ১২:২১:১৫
চারিদিকে সবুজ মধ্যখানে লাল  দৃশ্যমান নওয়াগাঁও আশ্রয়ন প্রকল্প ২২ মার্চ উদ্বোধন।

চারিদিকে সবুজ মধ্যখানে লাল পূর্ব দিগন্তে হারিয়ে যাওয়া নীল আকাশ পশ্চিমে সবুজ গ্রাম দক্ষিণ দিক  হইতে উত্তরে তিন কিলোমিটার দূর থেকে দৃশ্যমান হাওর বেষ্টিতো প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া উপাহারের একশোটি নির্মিত পাকা ঘর নওয়াগাঁও আশ্রায়ন প্রকল্প নজর কাড়ছে সবার। ইতিমধ্যে আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে ব্যাপক সৌন্দর্যতার শীর্ষে চমক সৃষ্টি করা প্রধানমন্ত্রীর অগ্রাধিকার প্রকল্পের অন্যতম আশ্রায়ণ প্রকল্প-২ এর আওতায় নওয়াগাঁও আশ্রায়ন প্রকল্পটি গ্রাম থেকে গ্রামান্তরে মানুষের মুখে মুখে ছড়িয়েছে। তৃতীয় ও ৪র্থ পর্যায়ের জমিসহ গৃহনির্মাণ প্রকল্পগুলো সারাদেশব্যপী আগামী ২২ মার্চ গণভবন থেকে ভার্চুয়ালী শুভ উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কথাও বলবেন উপকার ভোগীদের সাথে। তিন জেলার প্রকল্পগুলোর মধ্যে সিলেটের গোয়াইনঘাট উপজেলার নন্দিরগাঁও ইউনিয়নের নওয়াগাঁও আশ্রয়ন প্রকল্পও এর অন্তর্ভুক্ত রয়েছে।

সরেজমিনে দেখা যায়,সকাল থেকে বিকেলে প্রধান সড়ক হতে লাইন ধরে প্রকল্পটির সৌন্দর্য উপভোগ করতে স্থানীয়দের আনাগোনায় সরব হয়ে উঠছে চারপাশ। পাঁচটি লাইনে বিশটি করে ঘর মধ্যখানে বিশাল মাঠ। বিশুদ্ধ পানি ব্যবস্থার পাশাপাশি উপকারভোগীদের সুবিধার্থে লম্বা করে নির্মাণ হচ্ছে পাকা ঘাট। যাতায়াতের সুবিধার্থে প্রধান সড়ক হইতে 

 প্রকল্প পর্যন্ত দেড় কিলোমিটার রাস্তার ইট সলিং কাজ শুরু হয়েছে। নামমাত্র মিটার ফিসে সরকারি খরচে প্রতিটা ঘরে দেওয়া হয়েছে বিদ্যুতের ব্যবস্থা। 

 হাজারের উপরে লাগানো ফলজ বনজ ও ঔষধি গাছের কচি পাতা পূবালী বাতাসে দোল খাচ্ছে। রয়েছে মাছ চাষের ব্যবস্হা করা হয়েছে সবজি চাষ,পাশাপাশি নাগা মরিচ বেগুন পেঁপে গাছের সমাহার। ঘরের দখল বুঝে পাওয়ার পর  যাতায়াতের সুবিধা ভালো থাকায় বিভিন্ন জায়গার আত্মীয়-স্বজনরাও এসে তাদর সাথে রাত্রী যাপন করছেন। শিশু-কিশোরা কিচিরমিচির শব্দে আর গ্রামের হরেক রকম খেলার আনন্দে মেতে উঠেছে। 

 উপজেলা প্রশাসন সূত্রে জানা যায়,  মুজিব শতবর্ষ উপলক্ষে “বাংলাদেশের একজন মানুষও ভুমিহীন ও গৃহহীন থাকবে না” প্রধানমন্ত্রীর এ নির্দেশনা বাস্তবায়নে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী ইমরান আহমদ এমপির নির্দেশনায়  প্রকল্প বাস্তবায়নের শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত সর্বোচ্ছ গুরুত্ব দিয়ে কাজ করেছে গোয়াইনঘাট উপজেলা প্রশাসন।

হাইলা হাওরের ৫.৩৬ একর জমির চতুর্পাশে খাল খনন পূর্বক ৩.২৫ একর জমি ৬-৭ ফুট উচ্চতায় ভরাট করে প্রায় ২বছর কম্পেকশনের পর ভরাটকৃত এ জমিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপহার হিসেবে নির্মাণ করা হয়েছে ১০০টি ঘর।

এদিকে ২২ মার্চের উদ্বোধনকে ঘিরে উপজেলা প্রশাসনের নিবিড় পর্যবেক্ষণ তদারকি মনিটরিং ও বেড়েছে কর্মব্যস্ততা। উদ্বোধন অনুষ্ঠানকে সফল করতে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তাহমিলুর রহমান,উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) তানভীর হোসেন  ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক নন্দিরগাঁও ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এস কামরুল হাসান আমিরুল এবং উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা শীর্ষেন্দু পুরকায়স্থ প্রতিদিন এক দুইবার করে মাঠ পরিদর্শন করছেন। প্রকল্পের কাজে সংশ্লিষ্ট সকলকে সার্বিক দিকনির্দেশনা ও তাদের নিজ নিজ দায়িত্ব বুঝিয়ে দিচ্ছেন। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে কোন কিছুতে যাতে কোনো প্রকার ঘাটতি না থাকে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে সর্বোচ্চ প্রচেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।সকল কিছুর বিনিময়ে উদ্বোধনী অনুষ্ঠান সফল ও সার্থক করাই তাঁদের কাম্য। নওয়াগাঁও আশ্রয়ন প্রকল্প উদ্বোধনের আগেই  স্ব স্ব ঘরের দখল বুঝে পেয়ে সেখানে তাদের পরিবারোর লোকজন নিয়ে ঘর পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতায় ব্যস্ত সময় পার করছেন।তারাও উদ্বোধনের দিনটি স্মরণীয় করে রাখতে তাদের সাধ্যমত জিনিসপত্র দিয়ে পরিপাটির মাধ্যমে ঘরকে সাজিয়ে তুলছেন। স্বপ্নের এই ঘর পেয়ে তারা ভীষণ খুশী, এজন্য মহান আল্লাহর শুকরিয়া জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার  মানবিক এ উদ্যোগের জন্য তারা ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন ।

সিলেট আই নিউজ / এল টি

মাই ওয়েব বিট

আপনার ওয়েবসাইটের ভিজিটর মনিটরিং করার জন্য এটা ব্যবহার করতে পারেন, এটি গুগল এনালাইটিক এর মত কাজ করে।

ফেসবুক পেইজ