বুধবার, ২৪ জুলাই ২০২৪, ০৬:২৩ অপরাহ্ন



Repoter Image

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি :>>

প্রকাশ ৩১/০৮/২০২৩ ০৭:২৬:০৩
শান্তিগঞ্জের দিনব্যাপী কাবাডি(হাডুডু) খেলার দাওয়াতী উৎসব সম্পন্ন

বাংলাদেশের জাতীয় খেলা কাবাডি(হা ডু ডু) আর সেই খেলার ঐতিহ্য গ্রামের মধ্যে সম্প্রীতি আর ভালবাসার মেলবন্ধন মেলাতে শান্তিগঞ্জের বগুলারকাড়া গ্রামের আলমপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে দিনব্যাপী আয়োজন করা হয় কাবাডি (হাডুডু) খেলার দাওয়াতী উৎসব।

এতে শান্তিগঞ্জ ও ছাতক এই দুই উপজেলার ৫০টি কাবাডির দলের খেলায়াররা অংশ গ্রহন করেন। দেশের জাতীর খেলাকে টিকিয়ে রাখতে ও যুব সমাজকে মাদক মুক্ত রাখতে খেলায় আগ্রহী করে তুলার পাশাপাশি আশপাশের গ্রামের সাথে সৌহার্দ্যপূর্ণ সর্ম্পক বাড়াতে প্রতিবছরের মতো এবারো এমন দাওয়াতী উৎসবের মাধ্যমে এ কাবাডি খেলা প্রতিযোগীতার আয়োজন করা হয়েছে।

গ্রামবাংলার প্রাচীনতম ঐহিত্যা কাবাডি (হাডুডু) খেলা আমাদের দেশের জাতীয় খেলা হলেও এখন অনেকটাই কালের আবর্তে এই জনপ্রিয় খেলাটি হারিয়ে যেতে বসেছে। এমন আয়োজন সচরাচর দেখা যায়না। তবে গত প্রায় কয়েক বছর ধরে শান্তিগঞ্জের উপজেলার জয়কলস ইউনিয়নের বগুলারকাড়া ও ছাতকের চানঁপুর গ্রামবাসীর যৌথ আয়োজনে বগুলারকাড়া আলমপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে দাওয়াতী খেলায় হাজারো কাবাডি প্রেমিদের উপস্থিতিতে খেলার মাঠটি খানায় খানায় ভরে যায়। 

বৃহস্পতিবার সকাল থেকে দিনব্যাপী শান্তিগঞ্জ উপজেলার জয়কলস ইউনিয়নের বগুলারকাড়া আলমপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে শান্তিগঞ্জ উপজেলা বনাম ছাতক উপজেলার ৫০টি কাবাডি দল এ খেলায় অংশগ্রহন করে। এতে কাবাডিপ্রেমী হাজারো লোকজন জড়ো হন খেলা দেখতে। বিশেষ করে হাওরের জেলা সুনামগঞ্জ এর মানুষের বছরের ছয়মাস কৃষিকাজ নিয়ে ব্যস্ত থাকলে ও বর্ষার মৌসুমে কলকারখানা গড়ে না উঠায় এবং কর্মসংস্থানের সুযোগ না থাকায় অনেকটাই বেকারহীন মানুষজন বিনোদন হিসেবে কাবাডি খেলার আনন্দ উপভোগ করতেই ব্যস্ত। 

 এ উৎসবের অন্যতম দিক হলো খেলায় অংশ নিতে আসা  ছাতক উপজেলার  প্রায় ৬০০ খেলোয়ার আগেরদিন বগুলারকাড়া গ্রামে আসেন তাদের অতিথিদের আপ্যায়ন করতে সেচ্চায় গ্রামের প্রতিটি পরিবারের লোকজন । প্রতিযোগতিা উপলক্ষে পুরো গ্রামে উৎসবের আমেজ বিরাজ করে। এলাকাবাসিরা জানান এ খেলার ঐহিত্য ধরে রাখতে প্রতিবছর তাদের গ্রামে এ উৎসব করা হয়ে থাকে। তাদের বংশ পরমপরায় তাদের পূর্বপুরুষদের রীতি ধরে রাখতেই মূলত এ খেলার আয়োজন করে থাকেন। 

খেলায় বগুলারকাড়া গ্রামের আয়োজক কমিটির সভাপতি ও সুনামগঞ্জ জেলা মুক্তিযোদ্ধা যুব কমান্ডের সভাপতি ওবায়দুর রহমান কুবাদের সভাপতিত্বে এ সময় উপস্থিত ছিলেন,জয়কলস ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল বাছিত সুজন,বগুলারকাড়া গ্রামের মুরুব্বী সাজিদুর রহমান,ছমির উদ্দিন,নুরুল আমীন,আব্দুল ওয়াহিদ,এড.বোরেহান উদ্দিন দোলুন,কমিটির সাধারন সম্পাদক রুকনুজ্জামান রুকন,ছাতক উপজেলার চরমহল্লা ইউনিয়নের চানঁপুর গ্রাম কমিটির সভাপতি জুলহাস উদ্দিন,সাধারন সম্পাদক শরিফ উদ্দিন,রুয়েল আহমদ,নুর মিয়া মেম্বার,ইলিয়াছ আলী,ধন মিয়া ফখরুদ্দিন,রুশমত আলী,লাল মিয়া,ছমির উদ্দিন, স্থানীয় আওয়ামীলীগ নেতা এখলাছুর রহমান,আখল আলী হমরু মিয়া প্রমুখ। খেলায় ছাতক উপজেলা দলকে হারিয়ে বিজয়ী হয়েছেন দক্ষিন সুনামগঞ্জের বগুলারকাড়া দল। পরে  অতিথিরা দুই উপজেলার ১৯টি বিজয়ী দলের হাতে পুরস্কার তুলে দেন অতিথিবৃন্দরা। 

কাবাডি খেলার ঐতিহ্য ধরে রাখার পাশাপাশি হাওর এলকার গ্রামের মানুষের মধ্যে ভালবাসার মেলবন্ধন ধরে রাখতে এমন আযোজন জানালেন আয়োজকরা। তবে সরকারের পৃষ্টপোষকতা পেলে এই জনপ্রিয় খেলাটি তৃণমূলের মানুষের মাঝে ছড়িয়ে দেয়া সম্ভব বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন তারা ।  


সিলেট আই নিউজ / এল টি

মাই ওয়েব বিট

আপনার ওয়েবসাইটের ভিজিটর মনিটরিং করার জন্য এটা ব্যবহার করতে পারেন, এটি গুগল এনালাইটিক এর মত কাজ করে।

ফেসবুক পেইজ