যেসব কথায় সন্তানের মানসিক বিকাশ বাঁধাগ্রস্ত হয় | Sylhet i News
শনিবার, ২৭ নভেম্বর ২০২১, ০৩:২০ অপরাহ্ন

আই নিউজ ডেস্ক ::>>

প্রকাশ ২০২১-১১-১১ ২১:০৩:৪২
যেসব কথায় সন্তানের মানসিক বিকাশ বাঁধাগ্রস্ত হয়

পৃথিবীর সব বাবা-মা তার সন্তানকে সেরা হিসেবে দেখতে চায়। তাই সন্তানের কল্যাণের জন্য অনেক সময়  বকা ও শাস্তি দিয়েও শাসন করে থাকেন। তবে না জেনে বা বুঝে অনেক সময় মা-বাবা সন্তানকে এমন কিছু কথা বলেন, যা তাদের মনের ওপর গভীর প্রভাব ফেলে। এতে তাদের মানসিক বিকাশ বাঁধাগ্রস্ত হয়।

নিজের মনোভাব প্রকাশ করার একটি ওয়েবসাইটে এমনই কিছু অভিজ্ঞতা শেয়ার করেছেন কয়েকজন নারী-পুরুষ। তারা নিজেদের ছোটবেলা বেশ কিছু কথা আজও ভুলতে পারেন না। যা তাদের অভিভাবকেরা সব সময়ই তাদেরকে শুনিয়েছেন। 

তাই তাদের জীবনে ঘটে যাওয়া কিছু অভিজ্ঞতা শেয়ার করার মাধ্যমে তারা অন্যান্য অভিভাবকদের সতর্ক করতে চান। শিশুদের সামনে যে ধরনের কথা ভুলেও উচ্চারণ করা উচিত নয়, তা জেনে নিন এখানে─

​► ‘তোমার সন্তান হলে তুমি বুঝবে’- এ কথাটি কখনও সন্তানকে বলবেন না। এত তাদের মন ছোট হয়ে যায়। যে কোনো কাজে তারা মনোযোগ হারাতে পারে।

► সন্তানের প্রতিভা বা তার কোনো কাজ নিয়ে সমানেই অপমান করবেন না। এতে আপনার সন্তানের প্রতিভা অপমানিত হয়। সন্তান নিজের ছোট প্রচেষ্টাতেও মা-বাবার প্রশংসা পেতে চায়। তাই তার মনে আঘাত লাগে এমন কিছু বলবেন না।

​► সন্তানের সামনে কখনও মিথ্য বলবেন না। মনোবিজ্ঞানীদের মতে, শিশুদের কখনও এমন কোনো মিথ্যা কথা বলবেন না, যার সত্যতা ভবিষ্যতে তারা জেনে যেতে পারে। এতে শিশু মনে খারাপ প্রভাব পড়ে। এছাড়াও বারবার মিথ্যা বললে মা-বাবার প্রতি শিশুর বিশ্বাস হারায়।

► সন্তান কোনো কারণে মন খারাপ করলে তা দেখে উপহাস করবেন না। মনোবিজ্ঞানীদের পরামর্শ মতে, ছোটদের কষ্টকে ছোট করে দেখবেন না। আবার তাদের অনেক বেশি নিয়ন্ত্রণও করা উচিত নয়। সন্তানের ওপর তাদের ইচ্ছার বিরুদ্ধে কোনো কিছু চাপিয়ে দেওয়াও মা-বাবার উচিত নয়।

► অনেক বাবা-মা তাদের এক সন্তানের সঙ্গে অন্য ভাই-বোনের তুলনা করে। এটি কিন্তু খুবই খারাপ চিন্তা-ধারণা। এক সন্তান অন্যটির চেয়ে অসফল হলেও কখনও তাকে ছোট করবেন না। সন্তানদের সামনে আত্মীয়দের কাছে তাদের মধ্যে তুলনা করবেন না।

মনোবিদদের মতে, সন্তানকে এমন কোনো কথা বলবেন না, যা তাদের চলার পথকে রুদ্ধ করে, তাদের ভালো কাজ করা থেকে নিরুৎসাহিত করে। কখনও বলবেন না যে আপনি তাকে ভালোবাসেন না বা তাকে জন্ম দিয়ে আপনি ভুল করেছেন। তার মনে এমন কোনো নেতিবাচক চিন্তা-ভাবনা এলে তারা পরিবারের সদস্যদের থেকে দূর হতে শুরু করে।

সূত্র: প্যারেন্টস


আই নিউজ/টম

ফেসবুক পেইজ