কুলাউড়ার শরীফপুরে নৌকা প্রার্থীর বিরুদ্ধে বিদ্রোহী প্রার্থীর অভিযোগ | Sylhet i News
মঙ্গলবার, ২৫ জানুয়ারী ২০২২, ০৮:৪৭ পূর্বাহ্ন



কুলাউড়া প্রতিনিধি :>>

প্রকাশ ২০২১-১১-২৬ ১৬:৫০:২৯
কুলাউড়ার শরীফপুরে নৌকা প্রার্থীর বিরুদ্ধে বিদ্রোহী প্রার্থীর অভিযোগ

মৌলভীবাজারের কুলাউড়া উপজেলায় ৩য় দফায় আগামী ২৮ নভেম্বর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচনকে ঘিরে শেষ সময়ের প্রচার প্রচারনায় ব্যাপক উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে নির্বাচনী মাঠ।

উপজেলার ১১ নম্বর শরীফপুর ইউপি নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীক প্রার্থীর বিরুদ্ধে ৫টি কেন্দ্রে বিশৃঙ্খলা তৈরি, ভয়ভীতি ও জোরপূর্বক ভোট প্রদান করার আভাস পাচ্ছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। এবিষয়ে রিটার্নিং অফিসারের কাছে লিখিত অভিযোগ দাখিল করেছেন বিদ্রোহী প্রার্থী খলিলুর রহমান।

সরেজমিন ঘুরে দেখা যায়, শরীফপুর ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীক নিয়ে প্রতিদ্বন্ধিতা করছেন তফাজ্জল হোসেন চিনু, চশমা প্রতীক নিয়ে বিদ্রোহী প্রার্থী মো. খলিলুর রহমান, আনারস প্রতীক নিয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী বর্তমান চেয়ারম্যান জনাব আলী, মোটরসাইকেল প্রতীকে জামাল উদ্দীন ও পাখা প্রতীকে হাজী আকমল হোসেনসহ পাঁচজন প্রার্থী চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্ধিতা করছেন।

তবে নির্বাচনে মূল লড়াই হবে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী চশমা প্রতীক নিয়ে প্রতিদ্বন্ধীতাকারী মো. খলিলুর রহমানের সাথে আনারস প্রতীক নিয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী জনাব আলীর সাথে। শেষ সময়ের প্রচার প্রচারনায় সকল প্রার্থী সরগরম হয়ে উঠছেন। তবে আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীক নিয়ে প্রতিদ্বন্ধিতাকারী তফাজ্জল হোসেন চিনুর পাঁচটি কেন্দ্র দখল করে নেয়ার অভিযোগ তুলেছেন বিদ্রোহী প্রার্থী মো. খলিলুর রহমান। রিটানিং কর্মকর্তার কাছে ২৫ নভেম্বর একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন।

খলিলুর রহমান অভিযোগ করে বলেন, লালারচক সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও চাতলাপুর চা বাগান বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়সহ ৫টি ভোট কেন্দ্রে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী তফাজ্জল হোসেন চিনু বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করে জোরপূর্বক ভোট প্রদান করা হবে বলে হুমকি দেওয়া হচ্ছে। এবিষয়ে রিটার্নিং অফিসারের কাছে লিখিত অভিযোগ জানিয়েছি।

অভিযোগ বিষয়ে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী তফাজ্জল হোসেন চিনু বলেন, এধরণের অভিযোগ থাকলেও তিনি প্রমাণ করুক। তাহা মিথ্যা অভিযোগ বলে তিনি দাবি করেন।

এব্যাপারে কুলাউড়া উপজেলার ভারপ্রাপ্ত প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা ও শরীফপুর ইউনিয়নের রিটার্নিং অফিসার ডা. গোলাম মোহাম্মদ মেহেদি সিলেটভিউকে বলেন, নির্বাচনকালীন সময়ে মৌখিকভাবে কত লোক কত ধরণের কথা বলেন। অভিযোগের সাথে প্রমাণাদি থাকলে তদন্তপূর্বক আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। তাছাড়া বিষয়টি গুরুত্বসহকারে দেখা হবে।

এমএনআই

ফেসবুক পেইজ