সিলেটে ‘মার্সেল হা-শো’র অডিশন সম্পন্ন | Sylhet i News
মঙ্গলবার, ২৫ জানুয়ারী ২০২২, ০৮:০৮ পূর্বাহ্ন



বিনোদন ডেস্ক :>>

প্রকাশ ২০২১-১১-২৭ ১২:০০:০১
সিলেটে ‘মার্সেল হা-শো’র অডিশন সম্পন্ন

সিলেটে উৎসবমুখর পরিবেশে অনুষ্ঠিত হয়েছে এনটিভির জনপ্রিয় রিয়েলিটি শো ‘মার্সেল প্রেজেন্টস হা-শো’র সিজন-৬ এর অডিশন। এ উপলক্ষে দিনভর মুখর ছিল সিলেট শিল্পকলা একাডেমি প্রাঙ্গণ।

বিভাগীয় শহর সিলেট ছাড়াও চায়ের রাজধানী মৌলভীবাজার, সুনামগঞ্জ ও হবিগঞ্জের প্রত্যন্ত গ্রাম থেকে অডিশনে অংশ নিতে ছুটে আসেন প্রতিযোগীরা। নির্বাচিত সেরা তিন প্রতিযোগী অংশ নেবেন ‘মার্সেল হা-শো’র মূল প্রতিযোগিতায়। 

শুক্রবার (২৬ নভেম্বর) সিলেট নগরীর শিল্পকলা একাডেমিতে সকাল ৮টা থেকে দুপুর সাড়ে ১২টা পর্যন্ত প্রতিযোগীদের রেজিস্ট্রেশন চলে। দুপুর ১টার পর অডিটোরিয়ামে শুরু হয় অডিশন। চলে সন্ধ্যা পর্যন্ত।

অডিশন রাউন্ডের শুরুতে প্রতিযোগীদের স্বাগত জানিয়ে দিকনির্দেশনা দেন হা-শো’র যৌথ পরিচালক জাহাঙ্গীর চৌধুরী ও কাজী মোস্তফা। অডিশনে বিচারক প্যানেলে দায়িত্বে ছিলেন স্ট্যান্ডআপ কমেডিয়ান ইসতিয়াক নাসির, হা-শো সিজন-১ এর চ্যাম্পিয়ন সাইফুর রহমান সাইফুল ও অভিনেত্রী নাবিলা বিনতে হাসান।

ইতোমধ্যে রংপুর, বরিশাল, রাজশাহী, চট্টগ্রাম ও ঢাকা বিভাগের অডিশন পর্ব শেষ হয়েছে।

এনটিভি’র প্রযোজনায় এ আয়োজনের টাইটেল স্পন্সর বাংলাদেশের শীর্ষস্থানীয় ও জনপ্রিয় ব্র্যান্ড মার্সেল। অনলাইন মিডিয়া পার্টনার দেশের জনপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল রাইজিংবিডি ডটকম।

শ্রীমঙ্গলের উত্তর বারাউরার বাসিন্দা বার্ডস রেসিডেন্সিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজের শিক্ষার্থী পার্থ দেব বলেন, ‘হা-শো আমার প্রিয় অনুষ্ঠান। এই অডিশনে আমার অংশ নিতেই হবে। এজন্য ভোরে ট্রেনে চড়ে ছুটে এসেছি।’

ঢাকা রাউন্ডের জন্য নির্বাচিত হয়ে পার্থ অনেক খুশি। তিনি বলে, ‘সুস্থ থাকার জন্য প্রয়োজন হাসি। আমি নিজে হাসতে হাসতে সবাইকে হাসাতে চাই।’

সবচেয়ে চমক ছিলেন মৌলভীবাজারের পঞ্চাশোর্ধ্ব সুদিপ দাস। সরকারি এই কর্মচারী পরিবারের কাউকে না জানিয়েই ছুটে এসেছিলেন ‘হা-শো’র অডিশনে অংশ নিতে। প্রতিযোগী তরুণ-কিশোরদের পিছনে ফেলে পেয়েছেন ঢাকা রাউন্ডে অংশ নেওয়ার সুযোগ। সুদিপ দাস বলেন, ‘এবার আমার দুই মেয়েকে বলতে পারব, শুধু তোমাদের হাসাই না, অন্যদেরও হাসাতে পারি।‘

সিলেট মেট্রোপলিটন ইউনিভার্সিটির দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী মো. হাদিউন নাহিয়ান চৌধুরী সিলেট নগরীর খাসদবির এলাকার বাসিন্দা। ঢাকা রাউন্ডে যাওয়ার সুযোগ পেয়ে তিনি অনেক খুশি। তিনি বলেন, ‘শুরু থেকেই আত্মবিশ্বাস ছিল যে, আমি পারব।’

হা-শো’ সিজন-৬ রিয়েলিটি শোতে প্রথম পুরস্কার বিজয়ী পাবেন নগদ ৫ লাখ টাকা। দ্বিতীয় পুরস্কার ৩ লাখ ও তৃতীয় পুরস্কার ২ লাখ টাকা। এছাড়া, ৭ জন ফাইনালিস্টের প্রত্যেকে পাবেন একটি করে মার্সেল ইনভার্টার রেফ্রিজারেটর। বাদপড়া প্রত্যেকে পাবেন মার্সেল এয়ারকন্ডিশনারের সৌজন্য গিফট হ্যাম্পার। প্রতিপর্বের সেরা পারফরমার পাবেন মার্সেল ওয়াশিং মেশিনের সৌজন্য গিফট হ্যাম্পার।

এমএনআই

ফেসবুক পেইজ