গোয়াইনঘাটের নন্দিরগাঁও ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে কে হচ্ছেন আগামীর অভিভাবক | Sylhet i News
মঙ্গলবার, ২৫ জানুয়ারী ২০২২, ০৭:১৭ পূর্বাহ্ন



গোয়াইনঘাট প্রতিনিধি :>>

প্রকাশ ২০২১-১১-২৬ ২৩:২৫:০৬
গোয়াইনঘাটের নন্দিরগাঁও ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে কে হচ্ছেন আগামীর অভিভাবক

সিলেটের গোয়াইনঘাটে আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ৭নং নন্দিরগাঁও ইউনিয়ন বাসীর কে হচ্ছেন চেয়ারম্যান? এমন আলোচনা ছড়িয়ে পড়েছে গোটা ইউনিয়ন জুড়ে। 

নির্বাচনের আর মাত্র একদিন বাকী। সারাদেশের ন্যায় গোয়াইনঘাটেও ২৮ নভেম্বর অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে ইউপি নির্বাচন। নির্বাচন সুষ্ঠু ভাবে সম্পন্ন করতে সার্বিক প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে। নির্বাচন সংশ্লিষ্ট প্রশাসন এমন তথ্য জানিয়েছে। 

গোয়াইনঘাটের নন্দিরগাঁও ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে ৬ জন প্রার্থীদের মধ্যে কে সেই সৌভাগ্যবান ব্যক্তি অলংকৃত করতে যাচ্ছেন নন্দিরগাঁও ইউনিয়ন পরিষদের অভিভাবক পদ? কেমন ব্যক্তিত্ব নির্বাচিত হচ্ছেন? তিন উপজেলার জিরো পয়েন্ট, নৌযান বন্দর ঐতিহ্যবাহী সালুটিকর এলাকার গুরুত্বপূর্ণ এই চেয়ারম্যান অাসনটিতে। গত২/৩দিন থেকে এমন নানা জল্পনা কল্পনা জোরালো ভাবে ছড়িয়ে পড়েছে গোটা ইউনিয়ন এলাকা জুড়ে।

এখানে চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী নৌকা মার্কায় বর্তমান চেয়ারম্যান এস কামরুল হাসান অামিরুল বলেন, বিগত পাঁচ বছর ইউনিয়ন বাসী কে অামি অান্তরীকভাবে যতেষ্ট সময় দিয়েছি।আমি ইউনিয়নের কামলা হিসেবে কাজ করেছি মাত্র। মানুষ আমাকে "একজন ভাল কামলা" মনে করলে আবারো আমাকে খেদমত করার সুযোগ দিবেন। 

(সি এন জি) অটো রিক্সা প্রতীক নিয়ে সাবেক চেয়ারম্যান মরহুম তেরা মিয়া বতন চেয়ারম্যানের ছেলে বর্তমানে জেলের মধ্যে দীর্ঘদিন থেকে কারাবন্দী। জামাল উদ্দিন আহমেদ তার ইউনিয়নের ভোটারদের কাছে কারাগার থেকে নিজের মুক্তি লাভের জন্যে প্রত্যেকের নিকট একটা করে ভোট ভিক্ষা চেয়েছেন। চেয়ারম্যান নির্বাচিত হলে তার মুক্তি লাভের পথ তৈরি হবে বলে তিনি দাবী করেন। নির্বাচিত হলে বাকী জীবন ইউনিয়ন বাসীর খেদমতে উৎসর্গ করবেন। কারাগার থেকে এমন বার্তা তিনি পাঠিয়েছেন। 

ঘোড়া মার্কায় মরহুম নজর চেয়ারম্যানের ছোট ভাই সাবেক চেয়ারম্যান সিরাজুল ইসলাম সিরাজ জানান, ইউনিয়নের মানুষ তাকে যে ভালোবাসা দেখাচ্ছেন, নির্বাচিত হলে এই আন্তরীকতার মূল্যায়ন তিনি করবেন। 

মটর সাইকেল প্রতীকে সাবেক চেয়ারম্যান মামুন রশীদ শাহীন তিনি চেয়ারম্যান নির্বাচিত হলে জনগণের অর্পিত দায়িত্ব সঠিক ভাবে পালন করবেন বলে জানান।

অপর দুই প্রার্থী হলেন, বহর গ্রামের চশমা মার্কার হীরক দেব ও নন্দিরগাঁও মানাইরা গ্রামের অানারস প্রতীকে আলহাজ্ব আব্দুল ওয়াহিদ। 

নির্বাচনে ত্রিমুখী প্রতিদ্বন্দ্বিতা হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। 

এদিকে,চেয়ারম্যান পদে জয় লাভের চুড়ান্ত উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়েছে বলে জানা গেছে। প্রার্থীদের নিজ নিজ কর্মী ও প্রার্থীগণ মরিয়া হয়ে উঠে পড়ে লেগেছেন, নির্বাচনী শেষ ফলাফল ঘরে তুলতে। দিন রাত বিশ্রামহীন গণ সংযোগ, উঠান বৈঠক ও জনসভা পর শেষ সময়ে পাড়া মহল্লায় ছড়িয়ে পড়েছেন। ভোটাররা বাড়ি ঘরে রাতের অাধারে ঘুমাতে পারছেন না। প্রার্থীদের গণ সংযোগের কারণে। এমন খবরও পাওয়া যাচ্ছে। একটু পর পরই প্রার্থীরা একের পর এক ভোটারদের বাড়িতে ছুটে চলছেন ভোটের আবেদন নিয়ে।

এদিকে, আসন্ন নন্দিরগাঁও ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে কেমন চেয়ারম্যান চান? এমন প্রশ্নের জবাবে মাওলানা রফিক আহমেদ মহল্লী বলেন, আমরা চাই এমন একজন চেয়ারম্যান, যিনি সমাজের নেতা আবার তিনি হবেন মসজিদের ঈমাম। এটা আমাদের ইউনিয়নে শুধু দূর আশা হয়ে রইল। 

শিয়ালা হাওর এলাকার কাজল মিয়া বলেন, অত্র ইউনিয়নের সমউন্নয়নের স্বার্থে ৮ ও ৯ নং ওয়ার্ড থেকে কেউ চেয়ারম্যান হলে সুবিধা হত। কিন্তু প্রার্থী দেওয়াই সম্ভব হয়নি। এই মুহুর্তে এবারে কি আর আশা করব? কালো টাকার দৌরাত্ম নির্বাচন কে প্রভাবিত করতে পারে বলে তিনি আশংকা প্রকাশ করেন। 

সিলেট মহানগরস্থ গোয়াইনঘাট উন্নয়ন ফোরামের সভাপতি আব্দুর রশীদ "সিলেট আই নিউজের" প্রতিবেদকে জানান, 

নন্দিরগাঁও ইউনিয়নের সালুটিকর থানা ঘোষণা প্রক্রিয়াধীন। এলাকাটি সিলেট নগরীর উপশহর হয়ে উঠছে। এমতাবস্থায় এখানে সৎ ও যোগ্য একজন চেয়ারম্যান খুবই প্রয়োজন । ভোটাররা বিষয়টি খেয়াল রাখবেন বলে তিনি অাশাবাদ ব্যক্ত করেন।

আই নিউজ/ এল টি

ফেসবুক পেইজ